দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় ১০ বছর পর যৌথ সভা, আশার আলো দেখছে কমিটি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা উপদেষ্টা কমিটির যৌথ সভা ১০ বছর পরে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই সভায় ১০ জন্য সংসদ সদস্য ছাড়াও ফায়ার সার্ভিস ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক, গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) চেয়ারম্যান, স্কাউটসের প্রধান, সশস্ত্র বাহিনীর প্রতিনিধিসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। বিজ্ঞাপন

সভায় জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলায় করণীয় ঠিক করতে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়। এসব বিষয়ে বক্তারা তাদের মতামত তুলে ধরেন। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে করণীয় ঠিক করে জানুয়ারি থেকে কাজ শুরু করা হবে বলে সিদ্ধান্ত হয় সভায়।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে এই যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিজ্ঞাপন

যৌথ সভা শেষে জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত জাতীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি তাজুল ইসলাম বলেন, প্রকৃতির সঙ্গে বৈরী আচরণ না হলে প্রকৃতি কোনোদিন মানুষের সঙ্গে বৈরী আচরণ করবে না। জলবায়ুর প্রভাবে আমরা ভোগান্তিতে আছি, অথচ বাংলাদেশ এই প্রভাবের জন্য দায়ী নয়। এর জন্য দায়ী উন্নত বিশ্বের দেশগুলো। কমিটির আজ যে আলোচনা হয়েছে, আগামী দিনে আশা করছি ভালো কিছু হবে। এই কমিটি দেশের জন্য ও জাতির জন্য কাজ করবে।

সভায় আলোচকরা তাদের মতামত তুলে ধরেন। হাওর অঞ্চলে বজ্রপাত নিরসনে তালগাছ লাগানোর ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। এছাড়া বেশি বেশি গাছ লাগানোর ওপরও গুরুত্ব দেন বক্তারা। দেশের কোনো জায়গায় প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিলে সবার প্রথমে কারা রেসপন্স করবে, তা ঠিক করার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলায় কার কী ভূমিকা থাকবে, সে বিষয়েও বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা উপদেষ্টা কমিটি বছরে দুইবার বৈঠক করবে। জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলায় সরকার প্রায় দুই হাজার দুইশ কোটি টাকার সরঞ্জাম কেনার প্রস্তুতি নিয়েছে বলে সভায় জানানো হয়। এসব সরঞ্জাম কেনা হলে সহজেই দুর্যোগ মোকাবিলা করা সম্ভব হবে বলে আশাবাদ জানান সংশ্লিষ্টরা। বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

সর্বশেষ সংবাদ