এসকোয়্যার নিটের আইপিও অর্থ ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন

পুঁজিবাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থের সঠিক ব্যবহার নিয়ে এসকোয়্যার নিট কম্পোজিটের বিরুদ্ধে প্রশ্ন উঠেছে। এসকোয়্যার নিটের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের মেয়েদের কনস্ট্রাকশন কোম্পানি দিয়ে ভবন নির্মাণ করা হলেও তা সবার উদ্দেশ্যে প্রকাশ না করায় এই প্রশ্ন উঠেছে।

এসকোয়্যার নিট কর্তৃপক্ষ পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত অর্থের ব্যবহার করছে তাদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট পিনাকল কনস্ট্রাকশন ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে। যে কনস্ট্রাকশন কোম্পানির চেয়ারম্যান আয়েশা হাবিব ও এমডি তামান্না হাবিব এসকোয়্যার নিটের এমডি এহসানুল হাবিবের কন্যা।

আন্তর্জাতিক হিসাব মান (আইএএস) অনুযায়ি, রিলেটেড পার্টির সঙ্গে লেনদেনের বিষয় আর্থিক হিসাবে প্রকাশ করতে হয়। তবে এসকোয়্যার নিট কর্তৃপক্ষ প্রায় ৯ মাস ধরে পিনাকল কনস্ট্রাকশন ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে ভবন তৈরী করলেও তা প্রকাশ করেনি। এরইমধ্যে কয়েকটি প্রান্তিক (কোয়ার্টার) আর্থিক হিসাব প্রকাশ করা হয়েছে।

এক মার্চেন্ট ব্যাংকের প্রধান নির্বাহি বলেন, রিলেটেড পার্টির সঙ্গে লেনদেনের বিষয় অবশ্যই আর্থিক হিসাবে প্রকাশ করতে হবে। এক্ষেত্রে কোয়ার্টারলি আর্থিক হিসাব আগে প্রকাশের সময় চলে আসলে, ওই হিসাবেই তুলে ধরতে হবে। কোয়ার্টারলি হিসাবও আন্তর্জাতিক হিসাব মান মেনেই করতে হয়। তাই কোয়ার্টারলিতে না করে বার্ষিক প্রতিবেদনে প্রকাশের যুক্তি দেখানোর সুযোগ নেই।

এ বিষয়ে এসকোয়্যার নিটের প্রকল্প ম্যানেজার মিজানুর রহমান বলেন, আমরা রিলেটেড পার্টির লেনদেনের বিষয়টি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের পূর্ণ আর্থিক প্রতিবেদনে প্রকাশ করব। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোয়ার্টারলি আর্থিক হিসাবে প্রকাশে বাধা নেই। তবে আমরা তা করি নাই। পূর্ণাঙ্গ আর্থিক হিসাবে প্রকাশ করব।

এসকোয়্যার নিট কর্তৃপক্ষ শেয়ারবাজার থেকে উত্তোলিত ১৫০ কোটি টাকার মধ্যে প্রায় ১০০ কোটি ৪২ লাখ টাকা ব্যবহার করবে পিনাকল কনস্ট্রাকশন ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে। এরইমধ্যে গত ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ৪১ কোটি ৪৪ লাখ টাকা ব্যবহার করা হয়েছে। তবে কনস্ট্রাকশন কোম্পানিটিকে গত অক্টোবরের মধ্যেই ৫৪ কোটি ৯ লাখ টাকা প্রদান করা হয়। যে কনস্ট্রাকশন কোম্পানিটি গঠন করা হয় ২০১৮ সালের আগষ্টে।

উল্লেখ্য, এসকোয়্যার নিট যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাছে প্রতিটি শেয়ার ৪৫ টাকা ও সাধারন বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪০ টাকা করে ইস্যু করে। যে কোম্পানির শেয়ার দর সোমবার (০৬ জানুয়ারি) লেনদেন শেষে ২৮.৩০ টাকায় দাড়িঁয়েছে।

www.24newsbox.com/

International Journal of Humanities and Social Science Review www.ijhssrnet.com Vol. 2 No. 5; July 2016 3(Druzin 2014). So rather than the economic order being (re)embedded in the social (legal) order, there is a risk that the social-legal order will be embedded in the global commercial order. This growing recognition of the “discrepancy between highly globalized economies and weakly globalized political structures,” (Augenstein 2014) long ago highlighted by Polanyi, has led to increasingly urgent calls for new theoretic and practical work to close that gap.Kate Nash of the University of London and Yale University has edited a volume illustrating the kind of critical imagining that is required.

সর্বশেষ সংবাদ